সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:২৪ অপরাহ্ন

যশোরের যৌণ পল্লিগুলো লকডাউন হলেও থেমে নেই ভ্রাম্যমান যৌন কর্মীরা ! 📺 Matrijagat TV

শামসুর রহমান নিরব স্টাফ রিপোর্টার :
  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ২ এপ্রিল, ২০২০

যশোরে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সর্তকর্তা অবলম্বনের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে নানা পদক্ষেপ নাগ্রহন করা হলেও যশোরে ভ্রাম্যমান যৌন কর্মীরা (পতিতারা) থেমে নেই? তারা শহরের বিভিন্ন স্থানে অবাধে বিচরণ করছে বলে খবর পাওয়া গেছে। ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে খেটে খাওয়া মানুষেরা করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় নিজেদের রক্ষার জন্য যখন বিভিন্ন প্রতিশেষধক ব্যবহারে অভ্যস্থ সেখানে শহর এলাকার অলিগলিতে নেমে আসছে ভ্রাম্যমান যৌন কর্মীরা।

এদের মধ্যে কিছু সংখ্যক পায়ে হেঁটে কিছু তাদের চুক্তিবদ্ধ রিকশা যোগে বিভিন্ন স্থানে ছুটোছুটিতে ব্যস্ত থাকতে দেখা গেছে। সংক্রমন এই রোগ ছড়াতে ভ্রাম্যমান যৌন কর্মীরা বর্তমানে অপ্রতিরোধ্যভাবে এগিয়ে থাকছে বলে সূত্রগুলো দাবি করেছেন। যশোর শহরের গরীবশাহ রোডস্থ ব্যবসায়ী মোস্তাক আহমেদ জানান,সারা বিশ্ব যখন করোনা ভাইরাস মোকাবেলা ও প্রতিরোধ হিসেবে নিজেকে ঘরের মধ্যে আবদ্ধ ও সর্তকর্তা মূলক ভাবে অবস্থান সেখানে যশোর শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে সন্ধ্যা হলে নেমে আসছে যৌন কর্মী (পতিতা)। এদের মধ্যে কয়েকজন পায়ে হেঁটে শহরের বিভিন্ন রাস্তা ধরে চলাফেরা করে আবার কিছু সংখ্যক তাদের নির্দিষ্ট চুক্তিবদ্ধ রিকশা যোগে শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে চলন্ত অবস্থায় খরিদ্দার সংগ্রহন ও মোবাইলের মাধ্যমে খরিদ্দারের আস্তানায় পৌছে যাচ্ছে।

সন্ধ্যারাত সাড়ে ৭ টার পর থেকে ভোর রাত পর্যন্ত ভ্রাম্যমান যৌন কর্মী (পতিতা) অবস্থান নিয়ে তাদের পেশায় লিপ্ত হয়ে ওঠে। সূত্রগুলো জানিয়েছেন,করোনা ভাইরাস সংক্রমন হলেও এসব যৌন কর্মীরা পেটের দায়ে তাদের পেশায় লিপ্ত হচ্ছে। যশোরের নিষিদ্ধ পল্লী যৌনকর্মীদের করোনা ভাইরাস সংক্রমন রোগ থেকে রক্ষা করতে জেলা ও পুলিশ প্রশাসন ইতিমধ্যে বাইরে থেকে তালা লাগিয়ে লক ডাউন করে দেয়। প্রায় ৯ দিন যাবত যশোরের মাড়–য়াড়ি মন্দির সংলগ্ন তিনটি ও বাবু বাজার পতিতালয় দু’টি গলি জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে করোনা সর্তকর্তা হিসেবে বাইরে থেকে তালা মেরে লক ডাউন করে দেয়। তবে যশোরে ভ্রাম্যমান যৌন কর্মী (পতিতা) নিয়ে যশোরের বিভিন্ন এনজিও কাজ করলেও করোনা ভাইরাস মোকাবেলা ও প্রতিশেধক হিসেবে তাদেরকে কোন সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেয়নি। তাই ভ্রাম্যমান যৌন কর্মী হিসাবে অপ্রতিরোধ্য হয়ে যশোর শহরের বিভিন্ন সড়কে অবস্থান নিয়ে করোনা ভাইরাস ছড়াতে এগিয়ে রয়েছে।

ভ্রাম্যমান যৌন কর্মী (পতিতা) দের অবাধ বিচারণ রুখতে না পারলে যশোরে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জেলা প্রশাসনের পক্ষে যে পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়েছে তা পড়বে হুমকীর মুখে। যশোর শহরের বিভিন্ন পেশার মানুষ অবিলম্বে ভ্রাম্যমান যৌন কর্মীদের অবাধ বিচারণ থেকে রক্ষা করতে অতিদ্রুত পদক্ষেপ গ্রহনের জন্য জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
টিভি চ্যানেল
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
matv2425802581