মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৮:৫৮ পূর্বাহ্ন

টেন্ডার_নিয়ে_যুবলীগ ছাত্রলীগের সংঘর্ষ: চেয়ারম্যান বাবু ও নান্নু সহ ৬২ জনের নামে মামলা

বিশেষ প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম শনিবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২২

টেন্ডার_নিয়ে_যুবলীগ ছাত্রলীগের সংঘর্ষ:
চেয়ারম্যান বাবু ও নান্নু সহ ৬২ জনের নামে
মামলা
ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২২নারায়ণগঞ্জের সােনারগাঁ উপজেলার মােগরাপাড়া ইউনিয়নে অবস্থিত কাইকারটেক হাটের ইজারা নিয়ে স্থানীয় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মাঝে সংঘর্ষের ঘটনায় মােগরাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান আরিফ মাসুদ বাবু ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু সহ ৬২ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন
ছাত্রলীগের এক নেতা।সংঘর্ষের ঘটনায় ইতিমধ্যে ৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে মামলার বিষয়টি স্বীকার করেছেন সােনারগাঁ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান।
মামলায় চেয়ারম্যান আরিফ মাসুদ বাবু ও রফিকুল ইসলাম নান্নু ২২ জনের নাম উল্লেখ করে আরাে অজ্ঞাতনামা ৩০ থেকে ৪০ জনকে আসামি করে থানায় অভিযােগ দায়েরের পর মামলাটি করেছেন ছাত্রলীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম সজল।মামলায় রবিউল হােসাইন,রােমান, হৃদয়, অনিক, আলামিন ও শান্তকে গ্রেপ্তার করা হয়।১৭ ফেব্রুয়ারী রাত ১১টায় সংঘর্ষে আহত সিরাজুল ইসলাম সজল বাদী হয়ে অভিযােগটি দায়ের করেন। মামলায় মােগরাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফ মাসুম বাবু ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু ছাড়াও আসামি করা হয়েছে-মােগরাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য শিপন মেম্বার, মােগরাপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি এস.কে সজিব, সুমন, নূরে আলম, শফিকুল ইসলাম সাগর, হৃদয় প্রধান, অনিক প্রধান, আল আমিন, রােমান বাদশা, রবিউল, মলিন, শান্ত , পায়েল, রানা,রক্সি ও মামুনকে। লিখিত অভিযােগে দাবি করা হয় মােগরাপাড়া ইউনিয়নের ব্রহ্মপুত্র নদের তীরে ঐতিহ্যবাহী কাইকারটেক হাটটি ইজারা নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নুর সমর্থক রােমান বাদশা হাট পরিচালনা করে আসছিল।গত ১৬ ফেব্রুয়ারি বুধবার সকাল ১১টায় উপজেলা পরিষদে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি হাজী শাহ্ মোঃ সােহাগ রনির অনুগামী মামলার বাদী সিরাজুল ইসলাম সজল তার লােকজন নিয়ে ওই হাটের দরপত্র জমা দিতে যান।এতে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি নান্নুর অনুগামী মােগরাপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সজিব, যুবলীগ কর্মী সাগর,হৃদয়, অনিক, পলাশ, পায়েল সহ ২০/২৫ জনের একদল যুবলীগের নেতাকর্মীরা এসে বাধা দেন এবং ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন।আরাে অভিযােগ করা হয়- চাঁদা দিতে অস্বীকার
করলে নান্নুসহ অন্যান্য আসামীদের হুমকি দিয়ে হামলা চালায়, হামলায় শেখ মেহেদী হাসান, সজল, জাবেদ মিয়া, পারভেজ মিয়া, রানা,
মিরাজ হােসেন, আব্দুল আলী ও বাবু সহ ১৩ জন আহত হন।৩জনকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ পাসপাতালে পাঠানাে হয়।
সিনিয়র রিপোর্টার : সেলিম আহম্মেদ তপু ।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
© All rights reserved © Matrijagat TV
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
matv2425802581