শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:২৩ পূর্বাহ্ন

চৌগাছায় গৃহবধূকে নির্যাতন ও চুলকেটে দেয়ার অভিযোগ! 📺 Matrijagat TV

ইব্রাহিম হোসেন,চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি:
  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

যশোরের চৌগাছায় পরকীয়া ও স্বর্ণালঙ্কার চুরির অপবাদ দিয়ে এক গৃহবধূকে (৩৫) শারীরিক নির্যাতনের পর মাথার চুল কেটে দিয়েছে ভাড়া বাসার মালিকের স্ত্রী ও তার দু’মেয়ে। একই সাথে ওই নারীর ৪ বছর বয়সী মেয়েকেও মারধর করা হয়েছে। বর্তমানে ওই গৃহবধূ ও তার মেয়ে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ঘটনায় নির্যাতিত নারীর স্বামীর করা মামলায় ভাড়া বাড়ির মালিক জাফর ইমামের স্ত্রী সুলতানা রাজিয়া (৪৫) ও তার দুই মেয়ে জান্নাতারা ইমাম (২৪) ও সুমাইয়া ফারজানাকে (২০) গ্রেফতার করে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। বুধবার গভীর রাতে চৌগাছা পৌর এলাকার কারিগরপাড়ার একটি বাড়িতে এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। চৌগাছা থানায় নির্যাতিত নারীর স্বামী ইউনুস আলী দপ্তরীর অভিযোগ করেছেন। তিনি বলেছেন, তিনি তার স্ত্রী ও শিশু মেয়েকে (৪) নিয়ে চৌগাছা জাফর ইমামের বাড়িতে ভাড়া থাকেন। গত ২৬ জানুয়ারি তিনি ভাড়া বাড়িতে স্ত্রী ও শিশু সন্তানকে রেখে গ্রামের বাড়ি অভয়নগর উপজেলার ধোপাদী গ্রামে যান। এরপর ১ ফেব্রুয়ারি বাড়ির মালিকের মেয়ে সুমাইয়া ফারজানা মোবাইল ফোনে জানায়, তার স্ত্রী তাদের বাড়ি থেকে স্বর্ণালঙ্কার চুরি করে পালিয়েছে। ৩ ফেব্রুয়ারি ভাড়া বাড়িতে এসে ভাড়াটিয়াদের সাথে স্ত্রীকে খুঁজে বাড়িতে নিয়ে আসেন তিনি। এ ঘটনায় চৌগাছা থানায় একটি মামলা হয় এবং পুলিশ তার স্ত্রীকে আদালতে পাঠায়। সেখান থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে বুধবার তারা ভাড়া বাড়িতে যান। সেখানে রাত ১২ টার দিকে ভাড়াটিয়ার স্ত্রী ও দুই মেয়ে তাদের ঘরে গিয়ে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে ইউনুস আলীর স্ত্রীকে বেদম মারপিট করে। এসময় তার শিশু মেয়ে কান্নাকাটি করলে জান্নাতারা ইমাম তার গলা টিপে ধরে এবং ঘরের চৌকির সাথে আঘাত করে। তারা ওই নারীর স্বামীকে বলে, হয় তোর স্ত্রীকে সোনা দিতে বল, না হলে এখনি তার মাথার চুল কেটে ন্যাড়া করে দিবি।

লিখিত অভিযোগে তিনি বলেন, আমি চুল কাটতে অস্বীকার করলে তারা আমার শিশু মেয়েকে নিয়ে দোতলার দিকে উঠে যায় ও মারপিট করতে থাকে। এ সময় মেয়ের কান্না ও স্ত্রীর আর্তচিৎকার সহ্য করতে না পেরে বলি মেয়েকে আমার কাছে নিয়ে এসো আমি স্ত্রীর চুল কেটে দিচ্ছি। এরপর তারা মেয়েকে আমার কাছে নিয়ে আসে এবং আমার হাতে একটি কাঁচি দিয়ে স্ত্রীর চুল কেটে দিতে বাধ্য করে। চুল কেটে দেয়ার পরও তারা কোদালের আছাড় দিয়ে আমাকে আমার মেয়ে ও স্ত্রীকে মারপিট করে। পরে আমাদের আর্তচিৎকারে পার্শ্ববর্তী বাড়িগুলোর বাসিন্দারা এসে আমাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে বিষয়টি আমি থানা পুলিশকে জানালে এবিষয়ে মামলা হয়। নির্যাতিত নারী অভিযোগ করেছেন, তার সিজারিয়ান অপারেশনের জায়গা, মাথাসহ শরীরের গোপন স্থানেও গুরুতর আঘাত করা হয়েছে। হাসপাতালে নার্সরা তার শরীরের সারা গায়েই আঘাতের চিহ্ন পেয়েছেন। তাকে ও তার শিশু সন্তানটিকে এক্সরেসহ বিভিন্ন পরীক্ষা দিয়েছেন।

চৌগাছা থানার ওসি রিফাত খান রাজীব ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নারীর সমস্ত শরীরে নির্যাতন করেছে বাড়ির মহিলারা। বাচ্চাটিকেও নির্যাতন করা হয়েছে। তিনি বলেন এ ঘটনায় মামলা হয়েছে এবং অভিযুক্ত তিন নারীকেই গ্রেফতার করা হয়েছে। চৌগাছা হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. নাহিদ সিরাজ বলেন, বড় ধরনের কোন আঘাত পেয়েছেন কিনা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বলা যাবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
টিভি চ্যানেল
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
matv2425802581