শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১১:০৮ পূর্বাহ্ন

কুষ্টিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও কমিটির সভাপতি বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ! ? Matrijagat TV

মাতৃজগত টিভি ডেস্ক:
  • আপডেট টাইম সোমবার, ১০ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

১০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, সোমবারঃ কুষ্টিয়া জেলার খোকসা উপজেলার শিমুলিয়া ইউনিয়নে অবস্থিত পাইকপাড়া মির্জাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দেবাশীষ বিশ্বাস, সহ সহকারী প্রধান শিক্ষিকা ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোকাদ্দেস আলীর, বিরুদ্ধে ব্যাপক দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

এর প্রতিকার চেয়ে ওই বিদ্যালয়ে সহ-সভাপতি, শাজাহান মোল্লা ও ছাত্র-ছাত্রীর অভিভাবকরা অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক দেবাশীষ বিশ্বাস সহ সহকারী প্রধান শিক্ষিকা ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, মোকাদ্দেস আলীর বিরুদ্ধে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ তুলে ধরেছেন। অভিযোগে সহ-সভাপতি, শাজাহান মোল্লা বলেন যে, প্রধান শিক্ষক দেবাশীষ বিশ্বাস সুস্থ মানুষ হয়ে ছুটি কাটানোর জন্য শুধু মেডিকেল সার্টিফিকেট দিয়ে বাজারসহ বাড়িতে যাতায়াত করে কিন্তু স্কুলে আসে না। মাসে ১ থেকে ২ বার বিদ্যালয়ে এসে স্বাক্ষর করে আবার চলে যায় তার ইচ্ছামতো চলার কারণে বিদ্যালয়ের পরিচালনা নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে পড়ে। প্রধান শিক্ষকের গুরুত্বপূর্ণ ৩টি ক্লাস করার বিধান থাকলে ও তিনি শ্রেণির পাঠদান করে না। সরকারি বিধানে বিভিন্ন পরীক্ষার ফি শ্রেণিভিত্তিক নির্ধারিত থাকলে ও তিনি অতিরিক্ত ফি আদায় করে নিজে তা কুক্ষিগত করে রাখেন। বরাদ্দের টাকা দিয়ে কি কি করা হয় তা বিদ্যালয়ের কাউকে জানানো হয় না। তাছাড়া খরচের ভাউচার ও দেখানো হয় না।

অভিযোগে আরও বলা হয়, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দেবাশীষ বিশ্বাস সহ সহকারী প্রধান শিক্ষিকা ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, মোকাদ্দেস আলীর একসঙ্গে হয়ে এসপিএলআইয়ের বরাদ্দের টাকা উত্তোলন করে ভাগাভাগি করে নেন। বিদ্যালয়ের ফ্যান, ওয়াশব্রকের ড্রাম, শর্ট সাকির্ট ইত্যাদি প্রধান শিক্ষক তার নিজ বাড়িতে নিয়ে যায়। প্রধান শিক্ষক হওয়াই তিনি কাউকে তোয়াক্কা করেনা। সরকার থেকে দেয়া নতুন প্রজেক্টর আজ পর্যন্ত স্কুলে ব্যবহৃত হয়নি, প্রধান শিক্ষকের সেটি তার নিজ বাসায় ব্যবহার করছে। স্কুলের সরকারি ল্যাপটপ ব্যবহার করেন ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির মেয়ে ব্যক্তিগতভাবে তার বাসায়। অভিভাবক বা মা সমাবেশ কখনো স্কুলে দেয়া হয় না, অথচ সে সমাবেশের প্রাপ্ত অর্থ প্রধান শিক্ষক তুলে এনে তারা তিনজনে মিলে ভাগবাটোয়ারা করে নেন। ইউনিয়ন ও উপজেলা পর্যায়ে বাচ্চাদের খেলাধুলা থাকে, খেলাধুলায় অংশগ্রহণ করতে স্কুল থেকে মাঠে যাতায়াত করা এবং দুপুরের খাবারের জন্য সরকার থেকে ২৫০০/= বরাদ্দ দেয়া হয়। কিন্তু দুঃখের বিষয় হল শিক্ষক বাচ্চাদের খাবারের টাকা না দিয়ে সমস্ত টাকা তার পকেটে নিয়ে নেন। আর বাচ্চারা তাদের নিজেদের খরচে যাতায়াত করে। সরকার থেকে যেকোনো বরাদ্দকৃত অর্থ সঠিকভাবে কাজ না করে অর্থ তুলে ভাগবাটোয়ারা করে নেন। প্রধান শিক্ষক, সহকারী প্রধান শিক্ষিকা ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি। সবেমাত্র আড়াই লক্ষ টাকা এসেছে স্কুল সংস্করন কাজে। নিম্নমানের কাজ চলছে এবং সে টাকাও ভাগবাটোয়ারা করে খাওয়ার পায়তারা করছে তারা। স্কুলে বাচ্চাদের কোন টয়লেট নেই। বাচ্চাদের টয়লেট করতে পাশবতী বাড়ি যাওয়া লাগে বলে অভিযোগ করেছে উক্ত বিদ্যালয়ের সহ-সভাপতি, শাজাহান মোল্লা ও এলাকার সচেতন নাগরিকসহ ছাত্র-ছাত্রী অভিভাবকরা।

বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সাথে কোনো প্রকার সমন্বয় না করে তারা নিজেদের খেয়াল খুশি মতো স্বেচ্ছারিতার মাধ্যমে বিদ্যালয় পরিচালনা করছেন। যাতে করে প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে সমাজ উদ্বুদ্ধ করা অপরিহার্য হলে ও তার চরমভাবে বিঘ্ন ঘটছে। এ বিষয়ে আজ সরেজমিন ওই বিদ্যালয়ের গেলে সহ-সভাপতি, শাজাহান মোল্লা ও ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবরা সাথে কথা বলে জানা যায়,পাইকপাড়া মির্জাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দেবাশীষ বিশ্বাস স্থায়ী বাড়ি একই গ্রামে হওয়ায় তার পদ ও ক্ষমতার দাপট খাটিয়ে সরকারের কোনো নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে নিজের ইচ্ছামতো দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয় পরিচালনা করছেন। সহ-সভাপতি, শাজাহান মোল্লা ও উক্ত স্কুলের অভিভাবকরা বলেন আমাদের অনুরোধ, প্রধান শিক্ষক দেবাশীষ এবং সহকারী প্রধান শিক্ষিকা রেবেকা পারভীনকে অতিসত্বর বদলি করে স্কুলটা ভালো ভাবে পরিচালনা করার জোর দাবি জানান তারা।

এ বিষয়ে পাইকপাড়া মির্জাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দেবাশীষ বিশ্বাস সহ সহকারী প্রধান শিক্ষিকা ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, মোকাদ্দেস আলীর তাদের বিরুদ্ধে আনীত সকল অভিযোগ বিষয়ে জানতে চাইলে তাদেরকে পাওয়া যায় নাই। পরে তাদের ফোন নাম্বারে ফোন দিলে কোন নাম্বার রিসিভ করে না। আর প্রধান শিক্ষক তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন সবসময় বন্ধ রাখে এ জন্য তাকে খুঁজে পাওয়া যায় নাই।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
© All rights reserved © Matrijagat TV
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
matv2425802581