বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ১২:৫৮ পূর্বাহ্ন

কাজী ফার্মেসীর মালিক যখন ভুয়া ডাক্তার কাজী হেলাল উদ্দিনচট্টগ্রাম ,

প্রতিনিধি এসএম জসিম
  • আপডেট টাইম বুধবার, ২১ জুলাই, ২০২১

১২নং ওয়ার্ড পাহাড়তলী থানা দিন চট্টগ্রাম ডাক্তার যখন ফার্মেসীর মালিক তিনি দীর্ঘদিন ধরে কোন ডিগ্রিধারী ছাড়াই প্রেসক্রিপশনে এবং বিভিন্ন লিফলেট এর মাধ্যমে ডাক্তারি নামধারী প্রচার প্রচার চালিয়ে যাচ্ছে এ ফার্মেসীরমালিক ভুয়া ডাক্তার হেলাল উদ্দিন বর্তমানে তার প্রেসক্রিপশনে ডাক্তার নাম লিখে মানুষের সাথে চরম প্রতারণা করে যাচ্ছে তার বিরুদ্ধেও পূর্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ও অবৈধ ঔষধ রাখার দায়ে দুইবার জরিমানা করা হয় হয় ,শুধু তাই নয় উনি খতনা কান ফোড়া এবং বিভিন্ন সার্জারি কাজ করে থাকেন ভুক্তভোগী নাসিম আক্তার বলেন ,তার ছেলেকে খতনা করার নামে একবারের জায়গায় দুই বার খতনা করা হয়েছে, অনেক নারী কানপুরা , একবারের জায়গায় তিন বার করতে হয়েছে ,. তার ভিজিট হল ১০০ টাকা ওষুধ নিতে হবে তার দোকান থেকে ,তার দোকান থেকে ওষুধ নিলে নেওয়া হয় চড়া দাম এবং ওষুধের পরিমাণ লেখা হয় ৮ /৯ টি আইটেল, প্রতি প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী ভিজিট দিতে হয় হাজার , বারোশো টাকা এছাড়াও তার সাইনবোর্ডে রয়েছে সরকারি লোগো মানুষকে আকৃষ্ট করে তার মেসেজ কাজি ফার্মেসি সরকার অনুমোদিত লোগো লাগিয়ে মানুষকে আকৃষ্ট করে যাচ্ছে সন্ধ্যের পর কাজী ফার্মেসীর সামনে দাঁড়ালে দেখা যাবে ২০/২৫টি মোটরসাইকেল বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানি এসে তাকে স্যাম্পল এর ওষুধ এবং কিছু অসাধু ওষুধ কোম্পানি-ব্র্যান্ডের ওষুধ চুক্তির মাধ্যমে ওই ভুয়া ডাক্তার হেলাল উদ্দিন এর কাছে বিক্রি করেন ** ন্যূনতম এমবিবিএস অথবা বিডিএস ডিগ্রিধারী ব্যতীত অন্য কেউ তাদের নামের পূর্বে ডাক্তার পদবী লিখতে পারবেন না। তাও আবার তাকে বিএমডিসি’র রেজিস্ট্রেশনভুক্ত হতে হবে। এর ব্যত্যয় ঘটানো শাস্তিযোগ্য অপরাধ। ** বিএমডিসির সংশোধিত আইন অনুযায়ী পল্লী চিকিৎসক ও মেডিকেল অ্যাসিস্টেন্টরা তাদের নামের আগে ডাক্তার শব্দটি ব্যবহার করতে পারবেন না।ন্যূনতম এমবিবিএস বা বিডিএস ডিগ্রিধারী না হলে কেউ নিজেকে ডাক্তার হিসেবে পরিচয় দিতে পারবেন না। এই বিধান অমান্য করে কেউ নিজের নামের আগে ডাক্তার শব্দ ব্যবহার করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে বিএমডিসি। এমবিবিএস অথবা বিডিএস ডিগ্রিধারী ব্যক্তিরা ব্যতিত অন্য কেউ তাদের নামের পূর্বে ডাক্তার পদবী ব্যবহার করতে পারবেন না। কোনো ব্যক্তি এ উপধারা লংঘন করলে তাকে ওই একই দণ্ড পেতে হবে এবং অপরাধ অব্যাহত থাকলে প্রত্যেকবার তার পুনরাবৃত্তির জন্য ৫০ হাজার টাকা অর্থ দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
© All rights reserved © Matrijagat TV
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
matv2425802581